Now Reading
বাংলাদেশ মুসলিম বিবাহ রেজিস্ট্রেশন আইন: কিছু বাধ্যতামূলক শর্ত

বাংলাদেশ মুসলিম বিবাহ রেজিস্ট্রেশন আইন: কিছু বাধ্যতামূলক শর্ত

বাংলাদেশের বিবাহ আইন

বিয়ে নিয়ে বাংলাদেশে বিদ্যমান কিছু আইন রয়েছে। তার ভিতরে মুসলিম বিবাহ আইন অন্যতম। কেননা বাংলাদেশে মুসলিম জনগণ সংখ্যাগরিষ্ট। বাংলাদেশে বিবাহ রেজিষ্ট্রেশন সরকার বাধ্যতামূলক করে দিয়েছে। তাই বিয়ে করতে হলে অবশ্যই গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সরকারের বিবাহ আইন অনুযায়ী করুন।

বাংলাদেশের সংবিধান ও আইনের দৃষ্টিতে প্রত্যেক সাবালক নাগরিকের বিয়ে করার পূর্ণ অধিকার রয়েছে। বাংলাদেশ সংবিধানে ছেলেদের বিয়ের জন্য সর্বনিম্ন বয়স ২১ এবং মেয়েদের বিয়ের সর্বনিম্ন বয়স ১৮ ধার্য করা হয়েছে। এর কমে বিয়ে হলে সেই বিয়েকে বাংলাদেশ আইন সমর্থন করে না। এটা বাল্যবিয়ে হিসেবে বিবেচিত হবে। “বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ আইন ১৯২৯”, যেখানে এ জাতীয় বিয়ে সংঘটিত হলে তার বিরুদ্ধে মামলা করার এখতিয়ার দেয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ মুসলিম বিবাহ আইনঃ

বাংলাদেশে ১৯৩৯ সালের মুসলিম বিবাহ বিচ্ছেদ আইন, ১৯৬১ সালের মুসলিম পারিবারিক আইন, ১৯২৯ সালের বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন, ১৯৭৪ ও ১৯৭৫ সালের মুসলিম বিবাহ ও তালাক (রেজিস্ট্রেশন) আইন, ১৯৮০ সালের যৌতুক নিরোধ আইন প্রভৃতি আইনের সমন্বিত নিয়ম-ধারার অধীনে মুসলমান সমাজে আইনী বিয়ে ও আনুষঙ্গিক কার্যক্রম সম্পাদিত হয়। অবশ্য এই যাবতীয় আইনই ইসলামী শরীয়াতের অন্তর্বর্তি এমনটা বলা যায় না, বরং কোনো কোনো ক্ষেত্রে ইসলামী শরীয়াহ পরিপন্থি অনেক বিধানও এতে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। মুসলিম আইন অনুসারে বিয়ে একটি ধর্মীয় দায়িত্বই কেবল নয়, একটি দেওয়ানী চুক্তিও।এই আইন অনুসারে একটি পূর্ণাঙ্গ বিয়ের জন্য কতিপয় শর্ত পূরণ করতে হয়:

উভয়পক্ষের ন্যূনতম বয়স
পারস্পরিক সম্মতি
দেনমোহর
সুস্থ মস্তিষ্কের প্রাপ্তবয়স্ক ২ জন সাক্ষী

See Also
আপনার কি সামনেই বিয়ে? জেনে নিন কীভাবে শপিং করলে সস্তায় কিস্তিমাত সম্ভব

আইনী নিবন্ধন বা বিবাহ রেজিস্ট্রেশন

এই শর্তানুসারে বরের বয়স কমপক্ষে ২১ এবং কনের বয়স কমপক্ষে ১৮ হওয়া বাধ্যতামূলক। এছাড়া বর-কনেকে সুস্থ মস্তিষ্কের হতে হবে। অতঃপর নারী ও পুরুষকে ইসলামী বিধান অনুসারে উভয়পক্ষের সাক্ষীর সামনে একজন উকিল বা কাজি’র উপস্থিতিতে সম্মতি জানাতে হয় (মুসলিম আইন ও ইসলামী শরীয়াতে কনের প্ররোচনাহীন স্বেচ্ছা-সম্মতি বাধ্যতামূলক)। দুজন সুস্থ মস্তিষ্কের প্রাপ্তবয়স্ক সাক্ষী উপস্থিত থাকা বাধ্যতামূলক এবং একজন পুরুষের সাক্ষ্য দুজন নারী সাক্ষ্যের সমান নয়।

একজন নারীকে বিয়ে করতে হলে “দেনমোহর” দেয়া বাধ্যতামূলক। দেনমোহর হলো একটি আর্থিক নিশ্চয়তা (কিছু পরিমাণ অর্থ কিংবা সম্পত্তি), যার বিনিময়ে একজন নারী তার বিবাহিত পুরুষ সঙ্গীর জন্য হালাল বা সিদ্ধ হোন। ইসলাম ধর্মমতানুসারে এই দেনমোহর সম্পূর্ণ আদায় করে দিতে হয়, দেনমোহর মাফ হয় না। মুসলিম আইন অনুসারে বিয়ের নিবন্ধন বাধ্যতামূলক এবং এই দায়িত্ব পুরুষের। এই দায়িত্বের অন্যথায় ২ বছর পর্যন্ত বর্ধনযোগ্য মেয়াদের বিনা শ্রম কারাবাস, বা ৩,০০০ টাকা পর্যন্ত জরিমানা বা উভয়দণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন। একজন বিবাহিত নারী তার স্বামীর সেবা এবং আনুগত্য করবেন, আর বিবাহিত পুরুষ তার স্ত্রীর সম্পূর্ণ দেখভাল করবেন, যাবতীয় দায়িত্ব পালন করবেন এবং স্ত্রীর সুখ-শান্তি নিশ্চিত করবেন

What's Your Reaction?
Excited
0
Happy
0
In Love
0
Not Sure
0
Silly
0
View Comments (0)

Leave a Reply

Scroll To Top