Now Reading
চলাচলের সময় করোনা ভাইরাস থেকে সর্তক থাকুন

চলাচলের সময় করোনা ভাইরাস থেকে সর্তক থাকুন

চলাচলের সময় করোনা ভাইরাস থেকে সর্তক থাকুন

করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই চলছে জোরদার, তবু প্রতিদিন পৃথিবী জুড়ে আক্রান্তের সংখ্যাটা রোজ বাড়ছে, পরিস্থিতি মোকাবিলায় বাইরে না বেরিয়ে যতটা সম্ভব বাড়িতে থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞেরা। বাংলাদেশে স্কুল-কলেজ বন্ধ, বেশ কিছু বেসরকারি অফিসে শুরু হয়ে গেছে বাসা থেকে। সংক্রমণ যাতে আরও না বাড়ে, তার জন্য আগামী একমাস সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি আর নিরাপত্তা মেনে চলার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকেরা।

কোভিড-19 ভাইরাস আটকানোর প্রধান উপায় বেশ কিছুদিনের জন্য সবার সঙ্গে শারীরিক ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা। বয়স্ক মানুষ বা যাঁদের আগে থেকে কোনওরকম অসুস্থতা রয়েছে, তাঁদের এই দূরত্ব বজায় রাখা বিশেষভাবে দরকার। ভিড় এড়িয়ে চলা, সর্দিকাশিতে আক্রান্তদের থেকে দূরে থাকা, যতটা সম্ভব বাড়িতেই থাকার মতো পরামর্শ দিচ্ছেন সারা পৃথিবীর স্বাস্থ্যকর্মীরা। করোনা ভাইরাসের অগ্রগতি রুখতে এই মুহূর্তে সোশাল আইসোলেশনকেই অন্যতম হাতিয়ার হিসেবে ধরা হচ্ছে।

মুশকিল হল বাড়িতে বসে কাজ করার সুবিধে সবার নেই। তাই প্রয়োজনে রাস্তায় বেরোতে হচ্ছে এমন মানুষের সংখ্যাও কম নয়। রুজিরুটির প্রয়োজনে যাঁদের রাস্তায় বেরোতে হচ্ছে, চাপতে হচ্ছে বাসে ট্রামে বা মেট্রো রেলে, তাঁরা আদৌ কতটা নিরাপদ? পাশের মানুষটি সংক্রমিত কিনা কীভাবে বুঝবেন তাঁরা? আর সে ক্ষেত্রে কী কী নিরাপত্তা মেনে চলতে হবে? একটা সামগ্রিক সাবধানবিধি দেওয়ার চেষ্টা করলাম আমরা।

পাবলিক ট্রান্সপোর্ট ব্যবহার করার সময় কী করবেন
1. বাস, ট্রেন বা মেট্রোর সহযাত্রীটি প্রবল হাঁচি-কাশি-জ্বরে আক্রান্ত? তাঁর থেকে যতটা সম্ভব দূরে সরে যান। দরকারে বাসের চালক-কন্ডাক্টর, অন্য সহযাত্রী বা মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষকেও সতর্ক করুন।

2. রাস্তাঘাটে সর্দিজ্বরে আক্রান্ত মানুষের সংস্পর্শে এলে রুমাল দিয়ে নিজের নাক আর মুখ ভালো করে চেপে ধরে রাখুন। রোগীকে স্পর্শ করবেন না। যত দ্রুত সম্ভব ওই জায়গা ছেড়ে চলে যান।

3. যে সময়গুলোয় রাস্তাঘাটে লোকসংখ্যা বেশি থাকে, অর্থাৎ সকালে আর সন্ধেবেলার অফিস আওয়ারে পারতপক্ষে রাস্তায় বেরোবেন না। তাতে ভিড় বাস বা মেট্রো এড়িয়ে চলতে পারবেন। প্রয়োজনে আপনার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে কাজের সময়টা পালটে নিতে চেষ্টা করুন যাতে ফাঁকায় ফাঁকায় যাতায়াত করতে পারেন।

4. উবার বা ট্যাক্সি ব্যবহার করলে জানলা নামিয়ে রাখুন। বদ্ধ জায়গায় ভাইরাসের উপদ্রব বেশি হয়।

See Also
অফিসের ব্যাগের ওজন কমাতে চান? জেনে নিন তা কীভাবে সম্ভব

5. রাস্তা থেকে বাড়িতে বা অফিসে পৌঁছোনোর পর সাবান আর পানি দিয়ে খুব ভালো করে ঘষে ঘষে হাত ধুয়ে নিন। বাস-ট্রেনের হাতল, সিঁড়ির রেলিংয়ের মতো জায়গাগুলো ভাইরাসের আখড়া। সম্ভব হলে সঙ্গে একটা টিস্যু পেপারের প্যাকেট রাখুন। বাস-ট্রামের হাতল ধরার সময় হাতে টিস্যু জড়িয়ে নিন। সেটা সম্ভব না হলে হ্যান্ড স্যানিটাইজ়ার ব্যবহার করুন।

6. মুখে নাকে একদম হাত দেবেন না, তাতে জীবাণু শরীরের ভিতরে ঢুকে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

7. শেয়ার ক্যাব বা রেন্টাল বাইক ব্যবহার করলেও একই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

What's Your Reaction?
Excited
0
Happy
0
In Love
0
Not Sure
0
Silly
0
Scroll To Top