Now Reading
ওয়ার্ক ফ্রম হোম করছেন? কীভাবে ব্যালান্স করবেন অফিস আর সংসারের দায়দায়িত্ব

ওয়ার্ক ফ্রম হোম করছেন? কীভাবে ব্যালান্স করবেন অফিস আর সংসারের দায়দায়িত্ব

ওয়ার্ক ফ্রম হোম করছেন? কীভাবে ব্যালান্স করবেন অফিস আর সংসারের দায়দায়িত্ব

লক ডাউনের দিনগুলোয় যাঁরা বাড়িতে বসে অফিসের কাজ করছেন, তাঁদের বেশিরভাগই এই মুহূর্তে একটা কঠিন পরীক্ষার মুখোমুখি। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের জেরে এখন অধিকাংশ অফিসই তাদের কর্মীদের বাড়ি থেকে কাজ করার অনুমতি দিয়েছে। এমনিতে বাড়ি থেকে কাজ করার ব্যাপারটা শুনতে সহজ মনে হলেও একবার করতে শুরু করলে বুঝবেন ওয়ার্ক লাইফ ব্যালান্সের খেলাটা আসলে কতটা জটিল! কারণ অফিসে থাকলে আপনি শুধু অফিসের কাজই করেন, সেখানে অন্য কিছু আপনার মনোযোগে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে না। কিন্তু বাড়িতে বসে কাজ করা মানে কিন্তু উভয়সংকট! কারণ তখন যেমন আপনাকে পুরো দায়িত্ব নিয়ে অফিসের কাজ তুলে দিতে হবে, তেমনি বাড়ির দায়িত্বগুলোকেও দূরে সরিয়ে রাখতে পারবেন না। আপনার শ্বশুর-শাশুড়ি থাকলে তাঁরা অজান্তেই প্রত্যাশা করবেন আপনি ওঁদের সঙ্গে কাজ ভাগ করে নেবেন। আর শুধু স্বামী থাকলেও সংসারের কাজগুলো ভাগাভাগি করে করে নিতে হবে! এর উপরে শিশু সন্তান থাকলে তো আর কথাই নেই! ফলে ওয়ার্ক ফ্রম হোমের প্রসঙ্গ উঠলেই ভুক্তভোগী মেয়েরা আশঙ্কায় ভুগতে থাকেন!

কিন্তু উপায়ই বা কী! এই পরিস্থিতিতে ওয়ার্ক ফ্রম হোমই একমাত্র অপশন। তাই সংসার আর চাকরির মধ্যে ব্যালান্স করার চেষ্টা করে যাওয়া ছাড়া উপায় নেই। সেই ব্যালান্সিংয়ের কাজটাই আপনি কত ভালোভাবে করতে পারেন, তার উপরেই নির্ভর করবে আপনার সাফল্য। সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিচ্ছি আমরা।

প্ল্যান করে নিন
প্রতিদিন চাকরি করার সময়টুকুতে সংসারের কাজেও মাথা ঘামাতে হচ্ছে? কাজের সময় শিশু সন্তানের দৌরাত্ম সহ্য করতে হচ্ছে, রান্নাঘরেও ঢুকতে হচ্ছে কখনও কখনও! সে ক্ষেত্রে আপনাকে চাকরির দায়িত্বগুলো আগেভাগে প্ল্যান করে নিতে হবে। সমস্ত অফিসের কাজগুলো একজায়গায় লিস্ট করে নিন, সবক’টা কাজ করতে কত সময় লাগতে পারে, তারও একটা সময় বেঁধে দিন। এবার নিজেকে বলুন একটা কাজ শেষ না করে আপনি কিছুতেই উঠবেন না। একটা কাজ শেষ করে নিজেকে দশ মিনিটের ব্রেক দিন, এই দশ মিনিটে সংসারের টুকটাক কাজ করে নিতে পারেন।

বস ও সহকর্মীদের সঙ্গে কথা বলুন
যেহেতু এই সময়টা একটা অন্যরকম সময়, তাই বাড়ি থেকে কাজ করতে খুব অসুবিধে হলে সে কথা বস আর সহকর্মীদের সঙ্গে শেয়ার করতে পারেন। অনুরোধ করুন আপনার ডেডলাইনগুলো যেন প্রয়োজনে সামান্য শিথিল করা হয়। আপনি দক্ষ কর্মী হলে এই আবেদন ওঁরা অবশ্যই মেনে নেবেন।

কথা বলুন পরিবারের সঙ্গেও
আপনার পরিচয় আপনার পেশাদারিত্বে। যে কাজটা করবেন, তাতে যেন একটুও ভুলভ্রান্তি না থাকে। দরকার পড়লে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলুন। পরিস্থিতির কারণে আপনি বাড়িতে বসে কাজ করছেন ঠিকই, কিন্তু আসলে এটা অফিস টাইমই, এ কথাটা ভালো করে ওঁদের বুঝিয়ে দিন এবং এই সময়টায় অফিসের কাজ বাদ দিয়ে অন্য দিকে মাথা দেওয়া আপনার পক্ষে সম্ভব নয়, সেটাও বলুন। প্রথম দু’একদিন অসুবিধে হবে, কিন্তু ধীরে ধীরে পরিস্থিতি সহজও হয়ে যাবে।

See Also
রাত জেগে অফিসের কাজ করছেন? কীভাবে এড়াবেন এই পরিস্থিতি?

স্বামীর সঙ্গে কথা বলুন
আপনার স্বামীও কি ওয়ার্ক ফ্রম হোম করছেন? সে ক্ষেত্রে নিজের ব্যাপারটা নিয়ে ওঁর সঙ্গে কথা বলতে পারেন। আপনার অসুবিধেগুলো ওঁর সঙ্গে শেয়ার করুন। দু’জনে মিলে পরামর্শ করে এগোলে দু’জনেরই সুবিধে হবে।

নিজের যত্ন নিন
এটা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ! অফিসের কাজ আর সংসারের কাজ, এই দুই চাপে নিজের প্রতি অবহেলা করবেন না। পুষ্টিকর খাবার খান, প্রচুর জল, ফলের রস খান। নিয়মিত ফ্রি হ্যান্ড বা মেডিটেশন করলে মন শান্ত থাকবে। নিজের যত্ন নিন, দেখবেন এই সময়টাও দেখতে দেখতে কেটে যাবে!

What's Your Reaction?
Excited
0
Happy
0
In Love
0
Not Sure
0
Silly
0
Scroll To Top