Now Reading
স্তন্যপান করানোর পর আপনার স্তনের আকার পুনরায় কীভাবে ফিরিয়ে আনবেন

স্তন্যপান করানোর পর আপনার স্তনের আকার পুনরায় কীভাবে ফিরিয়ে আনবেন

স্তন্যপান করানোর পর আপনার স্তনের আকার পুনরায় কীভাবে ফিরিয়ে আনবেন

একজন মা হিসেবে আপনি একবার আপনার সন্তানকে বুকের দুধ ছাড়ানোর পর আপনার স্তনের আকারটি হয়ত উন্নত করতে চাইতে পারেন।আর এর জন্য আপনি হয়ত আপনার নিজেকে সেরা দেখাতে চাইতে পারেন এবং গর্ভাবস্থা পরবর্তী সেসকল ছবিগুলিও একবার দেখতে চাইতে পারেনআর সেই সুদৃঢ় আকারটি পুনরায় ফিরে পাওয়ার জন্য আপনি যথাসাধ্য করার চেষ্টা করবেন।একবার আপনি আপনার সন্তানকে স্তন পান করানো শুরু করলেআপনার স্তনগুলি দমে যায় ও ঝুলে যেতে থাকে আর সেগুলি আপনার মনের মত সেই সুন্দর ও সুঠাম আকার আর ফিরে পায় না।কিন্তু তাই বলে চিন্তার কিছু নেই।স্তন পান করানোর পর আপনার স্তনের আকারের উন্নতি ঘটাতে আপনি কি করতে পারেন তা এখানে আলোচনা করা হল।

স্তন পান করানোর পর আপনার স্তনগুলি দমে যায় বা ঝুলে পড়ে কেন?

নতুন মায়েদের স্তন পান করানোর সাথে প্রায়শই নাকি সঙ্গী হয়ে ওঠে তাদের স্তন অবনমিত হওয়া বা ঝুলে যাওয়ার মত বিষয়টিতবে এটা সত্যি নয়।এটার আসল সময় হল গর্ভাবস্থার শেষ পর্যায়যা স্তনের দমে যাওয়া বা ঝুলে পড়ার কারণ হয়ে ওঠে।নতুন মায়েরা বর্ধিত দুগ্ধ নালীর জন্য গর্ভাবস্থায় যে অতিরিক্ত ওজন লাভ করে থাকেনতা হ্রাস পেতে শুরু করে যখন স্তন একবার সঙ্কুচিত হতে শুরু করে।
গর্ভবতী মহিলার শারীরিক ওজন হ্রাসের সাথে একত্রিত হয়ে এটি স্তনের আকারকে ডিফ্ল্যাটেড করে তোলে।

স্তন পান করানোর পর আপনার স্তনের আকার পুনরায় ফিরিয়ে আনার সহজ উপায়গুলি

স্তন পান করানোর পর আপনার স্তনের আকারের পরিবর্তন করার অনেকগুলি উপায় আছেআর সেগুলির মধ্য থেকেই কয়েকটি নীচে আলচনা করা হলঃ

1.ধারাবর্ষণ বা ঝরনা

বিকল্প ধারাগুলি নিনতবে তাই বলে প্রতি বিকল্প দিনেই একটি করে ধারাবর্ষণ বা ঝরনা নয়।এর মূল পন্থাটি হল আপনার ধারাবর্ষণ করার সময় জলের তাপমাত্রার পরিবর্তন করা।স্তনের প্রবলতা এবং দৃঢ়তার ধীরে ধীরে উন্নতি ঘটানোর এটি একটি সহজ কৌশল এবং সেগুলিতে প্রাণের সঞ্চার করে।আপনার ঝরনা চালানোকালীন অবিচ্ছিন্নভাবে ঠাণ্ডা ও গরম জলের পরিবর্তন করার এই কৌশলটি ব্যবহার করলে তা সব জায়গায় রক্ত সরবরাহকে উদ্দীপ্ত করতে পারেবিশেষকরে আপনার স্তন অঞ্চলে।এটি আপনার স্তনগুলি দৃঢ় ও কিছুটা সুঠাম করে তুলবে।তবে এই কৌশলটি কেবল একটা সাময়িক বা অস্থায়ী প্রভাব ফেলবে এবং আপনার স্তনের আকার পুনরায় স্থায়ীভাবে পরিবর্তন করবে না।

2.একটি সঠিক ভঙ্গিমার সাথে একটা যথাযথ ব্রা

বাচ্চাদের বুকের দুধ ছাড়ানোর পর স্তনের দমে যাওয়া বা ঝুলে যাওয়ার বিষয়টি হল এমন একটা বিচ্ছিরি ব্যাপার যা অধিকাংশ মহিলারাই এইসময় অনুভব করে থাকেন। এধরনের পরিবর্তনের বিপরীতে সহায়তা করার জন্য যা দরকার তা হল প্রাথমিক পর্যায় থেকেই সঠিক ব্রা ব্যবহার করার পাশাপাশি নিজেকে তার সাথে সঠিকভাবে ধরে রাখা।আর এর জন্য আপনাকে হয়ত আপনার পুরানো ব্রাগুলিকে নতুন ব্রাগুলির দ্বারা প্রতিস্থাপন করতে হতে পারে এবং আরও ভাল আকার পেতে ও সমর্থনের জন্য স্পোর্টস ব্রাগুলিকেও বেছে নিতে হতে পারে।তদুপরিআপনি যেহেতু আপনার শিশুকে একটানা ধরে রাখেন এবং তাকে খাওয়ানআপনার ভঙ্গিমা বদলে যায় এবং এটি সামনের দিকে সামান্য ঝুঁকে যায়।এটি সংশোধন করুন এবং আপনার বুকের দুধ খাওয়ানোর কৌশলটিও ঠিক করুন।

3.আপনার স্তনগুলির ম্যাসাজ বা মালিশ করুন

স্তন পান করালে তা আপনার স্তনগুলিকে প্রচুর উদ্দীপনা সরবরাহ করেতবে বুকের দুধ খাওয়ানো ছাড়িয়ে দিলে তা কোনওমতে প্রায় কোনরূপ উদ্দীপনাই সেগুলিতে জোগায় না বললেই চলে।আপনার স্তনগুলিতে ম্যাসাজ করাএর বিপরীতে আরও ভালভাবে কাজ করতে আপনাকে সাহায্য করতে পারে।আর এর বিভিন্ন কৌশলগুলি এটা নিশ্চিত করে যেএর দ্বারা রক্ত সঞ্চালনার ফলে আপনার স্তনগুলি সমস্ত দিক থেকে উত্তেজনা গ্রহণ করে এবং তা সেগুলিকে পুনরূজ্জীবিত করে আর মেরামত ও পুনঃবৃদ্ধিতে স্তনের টিস্যুগুলিকে সমর্থন করে।জলপাই তেল বা বাদাম তেল ব্যবহার করলে তা স্তন অবনমিত হয়ে যাওয়ার প্রভাবকে হ্রাস করতে পারে আর ম্যাসাজগুলি পেশীগুলিকে শক্তি জোগাতে পারে এবং সেগুলিকে একত্রে ধরে রাখতে সহায়তা করে|

4. প্রাকৃতিক ব্রেস্ট ক্রিম

স্তন্যপান করানোর পরবর্তী পর্যায়ে বেশিরভাগ মহিলারা তাদের স্তনের পরিবর্তনগুলি প্রতিরোধ করার জন্য যে জনপ্রিয় উপায়গুলি প্রয়োগ করেন তা হল প্রাকৃতিক ক্রিম এবং সাপ্লিমেন্ট বা পরিপূরকগুলি। মেথি বা প্যালমেটো থেকে তৈরিএই ক্রিমগুলির কিছু আকর্ষণীয় বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা ত্বক এবং পেশীর কলাকে বিভিন্ন উপায়ে প্রভাবিত করে।নিয়মিতভাবে এগুলিকে প্রয়োগ করা হলে তা ত্বককে কার্যকরভাবে শক্তিশালী করে তোলে এবং তার ফলস্বরূপ এমন এক গঠণ গড়ে তোলে যেখানে স্তন মসৃণ ও আকারে দৃঢ় হয়ে ওঠে।অতিরিক্তভাবে আবার মেথি ক্রিম স্তনের আকার এবং আয়তন অটুট রাখতে বিস্ময়করভাবে কাজ করার জন্য পরিচিত।যাইহোকতবে এগুলি ব্যবহার শুরু করার পূর্বে আপনার ডাক্তারবাবুর সাথে সে ব্যাপারে কথা বলে নেওয়াই সবচেয়ে ভাল।

5.একটি সঠিক ডায়েট

গর্ভাবস্থাকালীন ডায়েট এবং বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় মেনে চলা আপনার ডায়েটের তুলনায় বর্তমানে অনুসরণ করা আপনার ডায়েটটি নিশ্চই পৃথক হবে।আপনি যাই খান না কেনআপনার খাদ্যতালিকার মধ্যে অবশ্যই এমন কিছু খাদ্যগুলি অন্তর্ভূক্ত করার কথা মাথায় রাখতে হবে যেগুলি পেশীর দৃঢ়তা উন্নত করেআপনার ত্বককে কোমল করে তোলে এবং স্থিতিস্থাপক ত্বকের সাথে লড়াই করে সেটিকে শক্তিশালী করে তোলে।আর এর জন্য আপনার ডায়েটের মধ্যে অবশ্যই ভিটামিন বি এবং ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাদ্য আইটেমগুলি অন্তর্ভূক্ত করা প্রয়োজনযেহেতু এগুলি ত্বকের দৃঢ়তার উন্নতি ঘটায়।তাছাড়াওআপনাকে অবশ্যই চর্বি সমৃদ্ধ প্রাণীভিত্তিক খাদ্য সামগ্রীগুলি সেবন করা বাদ দিতে হবে।এগুলি আপনার স্তনে অধিক ওজন যুক্ত করতে পারে তবে সেগুলির কোমলতা হ্রাস করে।

6.নির্দিষ্ট কিছু শারীরিক যোগব্যায়াম

আপনি কি খাচ্ছেন তা কোনও বিবেচনার মধ্যেই পড়ে নাযদি না আপনি যোগব্যায়াম অনুশীলন করেনআপনার স্তনগুলি কখনই তাদের স্বাভাবিক আকারে ফিরে আসবে না।সঠিকভাবে অনুশীলন করা আপনার স্তনগুলি স্বাভাবিকভাবে দৃঢ় হয়ে ওঠার এবং সঠিক আকার ফিরে পাওয়ার জন্য সহজতম এবং সর্বাধিক সুবিধাজনক একটি উপায়।প্রকৃতপক্ষেস্তনগুলি হল কেবল ফ্যাটের স্তরসমূহসুতরাং সেগুলিতে আপনি সরাসরি আকার দিতে পারেন না।তবে তাদের নীচে থাকা বিভিন্ন পেশী এগুলিকে সঠিকভাবে সুউচ্চ করে ধরে রাখতে এবং আপনার বক্ষদেশের ভঙ্গিটিকে খাড়া ও সুঠাম রাখার কাজে সাহায্য করে।এগুলি হল সেই পেশী সমূহ যেগুলি কার্যকর ও সক্রিয় থাকাটা প্রয়োজন এবং ফলস্বরূপ এটি আপনার স্তনের পক্ষে দর্শনের প্রকৃত উন্নতি ঘটাবে।পুশআপসডাম্বেল পুলওভার এবং বুকের ওপর চাপএর মত ব্যায়ামগুলিকেই আপনার বেছে নেওয়া ভাল যেগুলি আপনার অন্তঃকরণ এবং বক্ষ অঞ্চলের ওপর ফোকাস করে।হালকা ওজন দিয়ে শুরু করুন এবং ধীরে ধীরে আপনার শক্তি তৈরি করুন।একজন ভাল জিম প্রশিক্ষকের সাহচর্য নিন এবং এই অনুশীলনগুলি শুরু করার আগে আপনার ডাক্তা্রবাবুর সাথে কথা বলে নিন।

7.সার্জিক্যাল বা শল্যচিকিৎসা সংক্রান্ত দ্বারা স্তন সুঠাম করার কৌশলগুলি

এটি আদর্শগতভাবেই আপনার শেষ অবলম্বন হওয়া উচিত আর যদি দর্শনের দিক থেকে একান্তই আপনি আপনার স্তনগুলির প্রতি অসন্তুষ্ট হয়ে থাকেনকেবল তখনই এটিকে বেছে নেওয়া উচিত।তবুওউপরে উল্লিখিত অন্যান্য প্রাকৃতিক পদ্ধতিগুলির প্রতিটিই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ব্যবহার করার জন্য উচ্চ পরামর্শ দেওয়া হয় এবং তাদের ফলাফলগুলি যদি একান্তই সঠিক না পাওয়া যায় সেক্ষেত্রে তবে সার্জিকাল কৌশলগুলিকে বেছে নেওয়ার পক্ষে সুপারিশ করা হয়।চিকিৎসা অগ্রগতির কারণে এক্ষেত্রে আরও উন্নততর কিছু পদ্ধতি রয়েছে যা আপনার স্তনগুলিকে প্রাকৃতিক অনুভূতি দেয় এবং শল্য চিকিৎসার পরেও তা স্বাভাবিক দেখায়।এব্যাপারে আপনার পছন্দ মতো আকার এবং আয়তন চয়ন করার ক্ষেত্রে অনেকগুলি শল্য চিকিৎসা পদ্ধতি যেমন থাকতে পারে আবার তা থেকে একটাকে বেছে নেওয়ার মত স্বচ্ছ পছন্দও আপনি গড়ে তুলতে পারেন।এই সার্জিক্যাল পদ্ধতির সাথে এগিয়ে যাওয়ার আগে প্রক্রিয়াটি সম্পর্কে আপনি পর্যাপ্ত গবেষণা করেছেন কিনা তা নিশ্চিত করুন এবং একজন অভিজ্ঞ প্লাস্টিক সার্জনকে বেছে নিন।

See Also
বাড়িতে বসে যবে থেকে কাজ করতে আরম্ভ করেছেন, তবে থেকেই কি কোমরে, পিঠে ব্যথা বড়ো ভোগাচ্ছে? ডাক্তার, ফিজিওথেরাপিস্ট, যোগ বিশেষজ্ঞ, যাঁর সঙ্গেই যোগাযোগ করুন না কেন, তিনি প্রথমেই বলবেন পশ্চার বা দেহভঙ্গিমা ঠিক রাখার কথা। বাড়িতে থাকার সময় আমরা সাধারণত পিঠ সোজা করে টানটান হয়ে বসে কাজ করি না। সোফায় এলিয়ে শুয়ে বা বিছানায় উপুড় হয়ে ল্যাপটপে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাজ করেন অনেকেই, আর তার ফলেই বাড়ছে শারীরিক অস্বস্তি। কিন্তু জানেন কি, সাধারণ কয়েকটি বিষয়ে সচেতন হলেই এই সমস্যা কাটিয়ে ওঠা সম্ভব? কোলকুঁজো হয়ে থাকবেন না। অনেকে একেবারে ছেলেবেলা থেকেই বসার সময় পিঠটা গুটিয়ে নেন গোল করে। তেমন কোনও শিশুকে দেখলেও নিজের দায়িত্বে সাবধান করুন। পিঠ টানটান না থাকলে বাড়তি চাপ পড়বে আপনার মেরুদণ্ড ও পিঠের মাসলের উপর। সব সময়েই যাঁরা কুঁজো হয়ে থাকেন, তাঁদের শরীরের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গেও একইভাবে চাপ পড়ে -- কার্যত পিঠের ব্যথা ছাড়াও দেখবেন আপনার হজমের অসুবিধে হচ্ছে, শ্বাস নেওয়ার সময়ে যথেষ্ট অক্সিজেন পাচ্ছে না ফুসফুস। তাই চেয়ারেই বসুন বা মাটিতে, পিঠ সবসময় টানটান রাখতে হবে, পেট টেনে রাখুন ভিতর দিকে। যখন দাঁড়াবেন বা হাঁটবেন, তখন শরীর যেন টানটান থাকে তা দেখতে হবে। কাঁধ থাকবে পিছনে, পেট টেনে রাখুন ভিতরে। মাথা থাকবে সোজা, চিবুক উন্নত। চেয়ারে বসে কাজ করার সময়েও খেয়াল রাখতে হবে এই ভঙ্গিমার কথা। চেয়ারে বসে কাজ করার সময় পা যেন মাটিতে সমানভাবে থাকে। টানা নিচের দিকে তাকিয়ে কাজ করলে বা স্মার্ট ফোন দেখলে কিন্তু ঘাড়ে ব্যথা হবে। যাঁরা খুব নরম গদিতে শুতে অভ্যস্ত, তাঁরা বদল আনুন শোওয়ার অভ্যেসে। খুব শক্ত বা নরম বালিশে শুলেও কিন্তু একইভাবে ঘাড়ে ব্যথা হতে পারে। যদি পেট আর কোমরে বাড়তি ফ্যাট থাকে, তা হলেও কিন্তু পশ্চার খারাপ হয়ে যাওয়ার একটা আশঙ্কা রয়েই যায়। এমন কিছু যোগমুদ্রা আছে, যা আপনার পশ্চার ঠিক করতে পারে। তবে, যে কোনও ব্যায়ামের ক্ষেত্রেই আমরা যে কথাটি বলে থাকি, এক্ষেত্রেও তাই বলব – অবশ্যই আপনার ট্রেনার বা চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ব্যায়াম করবেন। খুব ভালো কিছু অনলাইন টিউটোরিয়াল হয়, সেগুলি দেখেও করা যায়। তবে আয়নার সামনে অভ্যেস করতে পারলে ভালো হয় – অন্তত মুদ্রাগুলি ঠিক হচ্ছে কিনা দেখে বুঝতে পারবেন। উৎকটাসন, বীরভদ্রাসন, নৌকাসন, তদাসন, ভুজঙ্গাসন, মৎসেন্দ্রাসন, সেতুবন্ধনাসন, উত্তানাসন, অর্ধচন্দ্রাসন আপনার দেহভঙ্গিমা সুন্দর করে তোলে। তবে অভ্যাস করার আগে একবার আপনার ডাক্তার বা ট্রেনারের সঙ্গে কথা বলে নিন অবশ্যই।

স্তনের আকার পুনর্নির্মাণের এই সকল প্রক্রিয়াগুলির কি কোনও দীর্ঘ মেয়াদে উপকারিতা আছে?

প্রাকৃতিক কৌশলগুলির মাধ্যমে করা হলে তাদের প্রভাব কয়েক মাস ধরে দেখা দিতে শুরু করতে পারে এবং তাদের সর্বোচ্চ ফলটিতে পৌঁছাতে সেগুলি তাদের মত সময় নিতে পারে।আপনার স্তনকে দৃঢ় করে তুলতে এবং এর একটি সঠিক আকার আনতে কোনও নির্দিষ্ট পদ্ধতির সাথে এগিয়ে যাওয়ার পছন্দটি নির্ভর করে আপনার ইচ্ছাশক্তি এবং আপনি এতে যে পরিমাণ সময় এবং অর্থ বিনিয়োগ করতে ইচ্ছুক তার উপর।

নিয়মিত সঠিক যোগব্যায়াম অনুশীলন করাক্রিমের ব্যবহার করা এবং ডায়েটে কিছু পরিবর্তন আনার মাধ্যমে সেটি আপনার স্তনের একটি সঠিক আকার আনতে সহায়ক হতে পারে।আপনার স্তনগুলি আপনার গর্ভাবস্থার আগেকার আকার ফিরে পেতে নাও পারে তবে এই পদ্ধতিগুলি আপনার স্তনের দমে যাওয়া বা ঝুলে পড়া এবং আকারে প্রসারিত হওয়ার মত ব্যাপারগুলির উন্নতি ঘটাতে পারে।যাইহোকআপনি যদি নিজের দেহের কোনও নির্দিষ্ট চিত্র সম্পর্কে স্থিরচিত্ত হন এবং তার জন্য অতিরিক্ত মাইল অতিক্রম করতেও ইচ্ছুক হনতবে কোনও সার্জিক্যাল বা অস্ত্রোপচার পদ্ধতিকে বেছে নেওয়া আপনার জন্য সঠিক পছন্দ হয়ে উঠতে পারে।

তবুওআপনি আপনার স্তনগুলিকে কীভাবে এবং কিরকম দেখতে চান তা চয়ন করার স্বাধীনতার সাথে যে ব্যয় যুক্ত হয় তা বোঝাটাও জরুরি।তবে এ ব্যাপারে আপনার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে একটানা গর্ভাবস্থায় স্তন বৃদ্ধি পাওয়ার প্রভাব এবং আপনার শরীরে যে কোনও প্রভাব পড়ার পাশাপাশি তা পুনরাবৃত্তির পদ্ধতিগুলিও বিবেচনা্র মধ্যে রাখতে হবে।

যদিও আপনার স্তনগুলি আগের মতো আকারে ফিরে আসার সম্ভাবনা প্রায় অসম্ভবের কাছাকাছি।তবে সেগুলি এমন অবস্থায় পৌঁছানোর খুব ভাল সম্ভাবনা রয়েছে যা আপনার বয়স এবং আপনার শরীরের পক্ষে বেশ ভাল মানানসই।স্তন্যপান করানোর পরে প্রাকৃতিক উপায়ে কীভাবে পরিপূর্ণসুঠাম ও সুশোভিত স্তন পেতে হয় তা জেনে রাখা আপনাকে সঠিক পথে চলার সাথে সঠিক পদক্ষেপ অবলম্বন করা শুরু করতে সাহায্য করতে পারে এবং আপনার অদ্ভুত শারীরিক লালিত্যটিকে ফুটিয়ে তুলতে আবার আপনার সেই সকল জাঁকজমকপূর্ণ চমৎকার পোশাকগুলিতে আপনাকে ফিট হতেও সাহায্য করে।

What's Your Reaction?
Excited
0
Happy
0
In Love
0
Not Sure
0
Silly
0
Scroll To Top