আপনার কি সামনেই বিয়ে? জেনে নিন কীভাবে শপিং করলে সস্তায় কিস্তিমাত সম্ভব

আপনার কি সামনেই বিয়ে? জেনে নিন কীভাবে শপিং করলে সস্তায় কিস্তিমাত সম্ভব

বিয়ের মরশুম শুরু হয়ে গিয়েছে পুরোদমে। যাঁরা এ বছরই বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন, বা যাঁদের বাড়িতে খুব ঘনিষ্ঠ কারও বিয়ে আছে, তাঁদের নিশ্চয়ই দম ফেলার ফরসত নেই? শেষ মুহূর্তের কেনাকাটি নিয়ে ব্যস্ততা একেবারে তুঙ্গে? তবে এখনও যদি খানিকটা সময় থাকে, তা হলে আমাদের পরামর্শ মেনে শপিং করুন। দেখবেন, কম খরচেই নানা ধরনের স্টাইল তৈরি করে ফেলতে পারছেন।

একগাদা দামি শাড়ি কিনবেন না: বাঙালি মেয়ের বিয়ে শাড়ি ছাড়া নিশ্চয়ই সম্পূর্ণ হবে না? কিন্তু তাই বলে একগাদা ভারী নকশাদার বা ব্রোকেডের কারুকাজ করা মহার্ঘ্য শাড়ি কিনে ফেলবেন না। বিয়ের দিন সন্ধেবেলা বা বৌভাতের রিসেপশনে যা পরলেন সেটা দামি হোক। বাকি সিম্পল সুতি, সিল্ক, চান্দেরি, গাদোয়ালের মতো কিছু শাড়ি অতি অবশ্যই কিনে রাখুন। দক্ষিণী সুতির শাড়ি, প্রিন্টেড বা একরঙা মলমলও রাখতে পারেন কয়েকটি – কোনওটার দাম হাজার দুয়েকের বেশি হওয়ার দরকার নেই। এই শাড়িগুলি বিয়ের পর অফিস যাওয়া বা আত্মীয়স্বজনের বাড়িতে নেমন্তন্ন খেতে যাওয়ার সময় দারুণ কাজে লাগবে।

অবশ্যই সেই ধরনের পোশাক কিনুন যা আপনি রোজের জীবনে সবচেয়ে বেশি পরেন: সালোয়ার কামিজ়, জিনস-শার্ট না ফরমাল ওয়্যার – রোজের জীবনে কোন ধরনের পোশাক আপনি সবচেয়ে বেশি পরেন? সেগুলি বেশি করে কেনা মাস্ট। বিয়ের পর পর কি আর পুরোনো পোশাক পরে অফিস যেতে ভালো লাগবে? হনিমুনে যাওয়ার জন্য কিছু ক্যাজ়ুয়াল ড্রেসও অতি অবশ্যই কিনে রাখুন।

ব্লাউজ়ের দিকে নজর দিন: একটা ভালো ব্লাউজ় কতভাবে স্টাইল করা সম্ভব বলুন তো? শাড়ির সঙ্গে তো পরা যায়ই, স্কার্ট বা জিনসের সঙ্গে তা পরলেও দারুণ দারুণ লুক তৈরি করা যায়। তা ছাড়া প্রত্যেকটি মেয়ের সংগ্রহে একটি লাল, একটি কালো, একটি ক্রিম বা অফ হোয়াইট ও একটি ব্রোকেডের ব্লাউজ় অবশ্যই রাখা উচিত। তা নানা ধরনের শাড়ির সঙ্গে মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ করে পরতে পারবেন।

See Also
সামনে বিয়ে? টলি-বলি তারকাদের লুকবুক দেখে বেছে নিন পছন্দের লাল শেডটি

নানা স্টাইলের অন্তর্বাস কিনুন: স্রেফ ব্রা, প্যান্ট বা ক্যামিসোল নয়, আপনার সংগ্রহে ঠিকঠাক সায়াও থাকা দরকার। শাড়ি কেনার সময়েই সেদিকে নজর দিতে হবে। কয়েকটি ন্যুড শেডের স্ট্র্যাপলেস ব্রাও থাকা উচিত সব মেয়ের সংগ্রহে। যে কোনও ব্লাউজ় পরে বাইরে যাওয়ার আগে একবার অবশ্যই ট্রায়াল দিয়ে নিন। ব্রায়ের স্ট্র্যাপ বেরিয়ে থাকলে দেখতে খারাপ লাগে, তাই অবশ্যই স্ট্র্যাপ কমিয়ে বাড়িয়ে একবার ট্রায়াল দিয়ে দেখে নিন সব ঠিক আছে কিনা।

ম্যাচিং অ্যাকসেসরিজ় রাখুন হাতের কাছে: সোনার গয়না পরে তো আর সব সময় রাস্তায় বেরোতে পারবেন না, তাই ডোকরা, পুতি, রুপো বা জার্মান সিলভারের গয়নাও সংগ্রহে রাখা উচিত। মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ করে পরুন নানা ধরনের পোশাকের সঙ্গে, দারুণ মানাবে!

What's Your Reaction?
Excited
0
Happy
0
In Love
0
Not Sure
0
Silly
0
Scroll To Top