Now Reading
গরমে ত্বকের যত্নের কার্যকারী টিপস

গরমে ত্বকের যত্নের কার্যকারী টিপস

গরমে ত্বকের যত্নের কার্যকারী টিপস

গ্রীষ্মে ত্বকের যত্ন নেবেন কী ভাবে? কী ব্যবহার করবেন, কী করবেন না।

 

শীতে এবং গরমে একই ভাবে ত্বকের যত্ন নেওয়া যায় না। আবহাওয়ার তারতম্যের কারণে শীতে যে ধরনের রূপচর্চা করা যায়, গরমে তা করা যায় না। গরমে ত্বকের যত্ন নেবেন কী ভাবে? রইল কয়েকটি পরামর্শ।

সাবান বদল: শীতে মুখে ধোওয়ার জন্য যে সাবান বা ফেস ওয়াশ ব্যবহার করতেন, গরমে তা করবেন না। কারণ গরমে মুখের গ্রন্থি থেকে অতিরিক্ত তেল বেরোয়। ফলে গ্রীষ্মের আলাদা সাবান ব্যবহার করুন।

 

সানস্ক্রিনের ব্যবহার: রোদের তাপে এই সময় ত্বক পুড়ে কালচে হয়ে যেতে পারে। তা থেকে বাঁচতে সানস্ক্রিন অবশ্যই ব্যবহার করুন। রোদে বেরোনোর আগে, মুখ-হাত-পা এবং শরীরের অন্য খোলা অংশে সানস্ক্রিন লাগান।

 

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট: যে সমস্ত ক্রিম বা সেরামে অতিরিক্ত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে, সেগুলি কিনুন। দরকার হলে একটু বেশি অর্থব্যয় করে হলেও সেগুলিই ব্যবহার করুন।

 

ফল খান: গরমে বেশি করে ফল খান। এতে শরীরে জলের ভারসাম্য বজায় থাকবে। তা ছাড়া ফলে থাকা ভিটামিন, পুষ্টিগুণ ত্বক ভাল রাখতে সাহায্য করবে।

 

বেশি করে জল: শরীরে এই সময় বেশি মাত্রায় দূষিত পদার্থ বা টক্সিন জমা হতে পারে। তাই গ্রীষ্মে বেশি জল খাওয়া উচিত। এতে ত্বক উজ্জ্বল হবে।

 

টোনারের ব্যবহার: গরমে টোনার ব্যবহার করতে পারলে ভাল। এটি ত্বকের তৈলাক্ত ভাব কমায়। ত্বককে পরিষ্কার রাখে।

 

কম মেকআপ: গ্রীষ্মে যত দূর সম্ভব কম মেকআপ করুন। এমনিতেই এই সময় ঘাম বেশি হয়। তার উপরে মেকআপ করলে ত্বকে চাপ পড়বে। বরং এমন কিছু মেকআপ সামগ্রী কিনুন, যা আপনার ত্বককে গরমকালে আরাম দেবে।

 

ঘামাচির সমস্যায় ভুগছেন? রেহাই পাওয়ার ঘরোয়া উপায় জেনে নিন

 

গরমকাল এলেই শুরু হয় ঘামাচির সমস্যা। কপাল, গলা, বুক, হাত ছেয়ে যায় ছোট ছোট লালচে ফুসকুড়িতে। কী করে মুক্তি পাবেন এই যন্ত্রণা থেকে? উপায় রয়েছে আপনার বাড়িতেই।

 

দই

রোদ থেকে ফিরে স্নান করে হালকা হাতে মুছে নিন। যে জায়গাগুলোয় ঘামাচি হয়েছে, তার উপর দইয়ের প্রলেপ লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট মতো। দইয়ে প্রচুর পরিমাণে ব্যাক্টেরিয়া প্রতিরোধক প্রাকৃতিক পদার্থ রয়েছে। এতে ত্বক ঠান্ডাও হবে। ১৫ মিনিট পর ধুয়ে নিয়ে আলতো করে মুছে নিন। ভুলেও ঘষবেন না।

চন্দন

 

অ্যাকনে, ফুসকুড়ি, ঘামাচির মতো সমস্যা চন্দন যে দূর করে দিতে পারে, তা মা-ঠাকুমারা বহুদিন ধরেই বলে আসছেন। চন্দনের গুড়ো গোলাপ জলে মিশিয়ে ঘামাচির উপর লাগাতে পারেন। চন্দন বেটেও লাগাতে পারেন। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জলে ধুয়ে নেবেন।

 

See Also
রাত জেগে অফিসের কাজ করছেন? কীভাবে এড়াবেন এই পরিস্থিতি?

মুলতানি মাটি

 

গোলাপ জলের সঙ্গে মুলতানি মাটি মিশিয়ে একটা প্যাক বানিয়ে নিয়ে লাগিয়ে দেখুন। পুদিনা পাতা বেটে, তার সঙ্গে মুলতানি মাটি আর ঠান্ডা দুধের প্রলেপ বানিয়েও ঘামাচির উপর লাগাতে পারেন। ত্বক ঠান্ডা হয়, জ্বালা ভাবটা অনেকটাই কমে যাবে।

 

যে জিনিসগুলি মাথায় রাখবেন

 

১। সিনথেটিক কাপড় সরিয়ে রেখে সুতির পোশাক পড়ুন। ত্বককে হাওয়া লাগানোর সুযোগ দিন।

 

২। ঘামাচি কখনও ঘষবেন বা চুলকোবেন না।

 

৩। শরীর ঠান্ডা রাখতে ঘোল, ডাবের জল বা লেবুর সরবত খান।

 

৪। ত্বক শুকনো রাখার চেষ্টা করুন। শিশুদেরএই সময় ডায়পার পরিয়ে রাখবে না। ট্যালকম পাউডার ব্যবহার করতে পারেন। ডাক্তারের পরামর্শে বোরিক পাউডারও লাগাতে পারেন।

What's Your Reaction?
Excited
0
Happy
0
In Love
0
Not Sure
0
Silly
0
Scroll To Top